কন্যাশ্রী প্রকল্প আবেদন পদ্ধতি 2023। কন্যাশ্রী প্রকল্প কবে চালু হয়

Bongsrnews

কন্যাশ্রী প্রকল্প কি কারা এই প্রকল্প এপ্লাই করতে পারবেন এবং কি কি ডকুমেন্টস আপনাদেরকে সাবমিট করতে হবে আপনাদের বয়স কত হতে হবে সে সম্বন্ধে বিস্তারিত তথ্য আলোচনা করব. তবে এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হলো কন্যাসন্তানের পড়াশোনাকে চালিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করা দরিদ্র মেয়েদের উচ্চ শিক্ষার ব্যবস্থা করা তারজন্যই মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী প্রকল্প চালু করেছেন

কন্যাশ্রী প্রকল্প কবে চালু হয় এবং কেন

এই প্রকল্পের জন্য আপনারা k1  এবং k2 from  এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন প্রথমে বার্ষিক 750  টাকা বৃত্তি হিসেবে এবং পরে 25000 টাকা এককালীন কন্যাশ্রী প্রকল্প হিসেবেপেয়ে থাকবে কন্যা ছাত্ররা।  উচ্চমাধ্যমিকের পর কন্যাশ্রী প্রকল্পের ও  সুবিধা রয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে। তবে এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হলো কন্যাসন্তানের পড়াশোনাকে চালিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করা দরিদ্র মেয়েদের উচ্চ শিক্ষার ব্যবস্থা করা তারজন্যই মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী প্রকল্প চালু করেছেন। রাজ্য সরকারের অন্যান্য প্রকল্প গুলির মধ্যে নারী এবং শিশু উন্নয়নের অনেকগুলি প্রকল্প রয়েছে তার মধ্যে থেকে কন্যাশ্রী প্রকল্প অন্যতম. 18 বছর পর্যন্ত মেয়েদের শারীরিক এবং মানসিক গঠনে ভবিষ্যতে যাতে তারা নিজেদের পায়ে দাঁড়াতে পারে তার জন্য এই বিশেষ প্রকল্প।  কন্যাশ্রী প্রকল্প চালু হয় ৮ই মার্চ ২০১৩ সালে কন্যা সন্তানদের আর্থিক সুবিধার জন্য।

কন্যাশ্রী প্রকল্প কি এবং কিভাবে আবেদন করবেন কন্যাশ্রী প্রকল্প 

অনান্যা প্রকল্প গুলো মধ্যে রাজ্য সরকারের এটি একটি বহুল প্রশংসিত প্রকল্প। এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হলো কন্যা সন্তানদের একটি আর্থিক সহায়তা করে তাদের শিক্ষা কে আরো বাড়িয়ে তোলা। রাজ্য সরকারের এই প্রকল্প সমস্ত কন্যা সন্তানরা সুবিধা পেয়ে থাকবেন। তো সেই উদ্দেশ্যে মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী 2013 সালের পয়লা অক্টোবর কন্যাশ্রী প্রকল্প চালু করেছিলেন এবং তিনি বলেছিলেন যে এই প্রকল্পের মাধ্যমে আমরা কন্যাদের আর্থিক সুবিধা প্রদান করব যাতে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করা হয়। এই কন্যাশ্রী প্রকল্প বর্তমানে জনপ্রিয় প্রকল্প হিসেবে পরিচালিত হয়েছে এই প্রকল্পের একটি বিশেষ স্লোগান রয়েছে যেখানে মমতা ব্যানার্জি নিজে এই শ্লোগানটি লিখেছেন “আমি প্রগতি আমি কন্যাশ্রী“.

এই প্রকল্পের আবেদন করতে হলে কন্যা সন্তানদের বিদ্যালয়ের বৃত্তিমূলক অথবা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে শিক্ষার্থী হতে হবে। আর অবিবাহিত মহিলারা এই প্রকল্প আবেদন করতে পারবেন বার্ষিক ভাতা পাওয়ার জন্য k1 এর মাধ্যমে এপ্লাই করতে পারবেন এবং এককালীন 25 হাজার টাকা পাওয়ার জন্য k2 From এ  আবেদন করতে হবে এবং এই ক্ষেত্রের আবেদনকারীর পারিবারিক বার্ষিক আয় হতে হবে এক লাখ কুড়ি হাজার টাকার মধ্যে। আবেদনকারী যে কোনো রাষ্ট্রীয় ব্যাংকে সেভিংস একাউন্ট খুলে এই প্রকল্প এপ্লাই করতে পারবেন বার্ষিক 750 টাকা অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রীদের আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে। বয়স হতে হবে 13 থেকে 18 বছরের মধ্যে এবং এককালীন 25 হাজার টাকা অনুদান দেয়া হবে বৃত্তিমূলক কেন্দ্রে পাঠরত অবিবাহিত মেয়েদের।

Share This Article
Leave a comment